রবিবার, ১৪ই আগস্ট, ২০২২ ইং, সকাল ১১:৩৭
শিরোনাম :
ডেপুটি স্পিকারের মরদেহে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা বাংলাদেশকে আরো অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পাথরঘাটার জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ, ওদের সবার মুখে হাসি জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় আগামী ৫ দিনে বৃষ্টি নিয়ে যা জানালো আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ রণবীরকে পেলে সত্যি বিয়ে করবেন দীঘি! মাত্র দেড় বছরের মাথায় পদত্যাগ করলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে জমিসহ আরো ২৬ হাজার ২২৯টি ঘর হস্তান্তর করেছেন প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে ঝুঁকিতে বাংলাদেশ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান রাত ৮টার পর দোকানপাট খোলা থাকলে তদের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন: প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ

নির্বাচনী সহিংসতায় রায়পুরায় দুই পক্ষের ঘরবাড়ি ভাংচুর: আটক ১০

শফিকুল ইসলাম , রায়পুরা জ প্রতিনিধি:
নরসিংদী রায়পুরায় নির্বাচনী সহিংসতায় রাধানগর ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম তপন দলের ও রায়পুরা উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সাদেক দলের সংঘর্ষে দুই পক্ষেরই ব্যাপক ঘরবাড়ি ও দোকান পাট ভাংচুর হয়েছে। গতকাল রায়পুরা উপজেলা রাধানগর ইউনিয়নে সাহের চর বাজারে এই ঘটনা ঘটে। দুই গ্রুপের সংঘর্ষে পর খোরশেদ আলম তপন দলের ৬ জন ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সাদেক দলের ৪ জন কে রায়পুরা থানা পুলিশ আটক নরসিংদী জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

জানা যায়, গত নির্বাচনী সহিংসতা থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সাদেক ও রাধানগর ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম তপন দলের মধ্যে নির্বাচনী ক্ষোভ বিরাজমান করে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়ে পড়েন। তাছাড়া রাধানগর ইউনিয়ন পরিষদে এক দরবার শালিশে উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সাদেক দলের লোকজন রাধানগর বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম তপনকে অপমান ও তার দুই ভাইকে বেদারক মারধর করেন এরই পরিপেক্ষিতে দুই দলের সংঘর্ষে ভয়ংকর আকারে রুপ ধারণ করে।

এই সংঘর্ষ বিষয়ে রাধানগর ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম তপন কিছু জানেন না বলে জানান।
আর এই সংঘর্ষে রায়পুরা উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সাদেক দলের ১ নং ওয়ার্ডের আ’লীগের সভাপতি নরুল হকের বাড়ি ভাংচুর ও সাহের চর বাজারে মায়ের দোয়া দোকানপাট ভাংচুর করা হয়। আর উভয়পক্ষের রাধনগর ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম তপন দলের সোবহানের বাড়ির তিনটি ঘরবাড়ি ভাংচুর করা হয়। আর সার্বিকভাবে এই সংঘর্ষ বন্ধ করার জন্য রায়পুরা থানা পুলিশ দুই পক্ষের ১০ জনকে আটক করেন।

এই বিষয়ে রায়পুরা থানার এসআই ফরিদ বলেন, নির্বাচনী সহিংসতা থেকে দুই দলের সংঘর্ষ হয়েছে। আর দুই দলের ১০ জনকে আটক করে নরসিংদী জেল হাজতে পাঠানো হয়। দুই দলের সংঘর্ষ আর যেনো না হয় তার জন্য এলাকায় পযার্প্ত পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আর এলাকার সার্বিক পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছেন বলে জানান।

সবাইকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা