রবিবার, ১৪ই আগস্ট, ২০২২ ইং, দুপুর ১২:০৯
শিরোনাম :
ডেপুটি স্পিকারের মরদেহে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা বাংলাদেশকে আরো অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পাথরঘাটার জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ, ওদের সবার মুখে হাসি জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় আগামী ৫ দিনে বৃষ্টি নিয়ে যা জানালো আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ রণবীরকে পেলে সত্যি বিয়ে করবেন দীঘি! মাত্র দেড় বছরের মাথায় পদত্যাগ করলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে জমিসহ আরো ২৬ হাজার ২২৯টি ঘর হস্তান্তর করেছেন প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে ঝুঁকিতে বাংলাদেশ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান রাত ৮টার পর দোকানপাট খোলা থাকলে তদের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন: প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ

আওয়ামী লীগ কখনোই ফাঁকা মাঠে গোল দিতে চায় না: ওবায়দুল কাদের

অনলাইন ডেক্স::

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগ কখনও ফাঁকা মাঠে গোল দিতে চায় না। আওয়ামী লীগ সকল রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন চায়।

রোববার (১৭ জুলাই) সকালে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) প্রধান কার্যালয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

আজ (রোববার) থেকে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে নির্বাচন কমিশন সংলাপে বসছেন। নির্বাচন কমিশনের এই সংলাপ চলবে ৩১ জুলাই পর্যন্ত। এবং শেষ দিন কমিশনের সাথে আওয়ামী লীগের ১০ সদস্যদের প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নেবে। বলে জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন কমিশনের ডাকে এই সংলাপে অংশগ্রহণ করা সকল রাজনৈতিক দলের দেশপ্রেমের দায়িত্ব, নির্বাচনের মাধ্যমে যারা সরকারের পরিবর্তন চান- তাদেরকেই নির্বাচনে অংশ নিতে হবে।

নির্বাচন কমিশনের সংলাপে প্রত্যেকটি নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল অংশ নেবে, এমন প্রত্যাশা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা এই নির্বাচনকে একটা প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হিসেবে দেখতে চাই। সে কারণে নিবন্ধিত সবার অংশগ্রহণে অবাধ, নিরপেক্ষ এবং বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচন ব্যবস্থায় আরো উন্নতি করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচন ব্যবস্থায় ইতোমধ্যে অনেকটা উন্নতি করেছেন উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ভবিষ্যতে নির্বাচন ব্যবস্থা আরো আধুনিক- মানসম্মত করা হবে।

বর্তমান ব্যবস্থাও একটি সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের অনুকূলে হবে বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের।

বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন নয়- বিরোধীদলগুলোর এমন দাবি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন হবে নির্বাচন কমিশনের অধীনে। নির্বাচন কমিশন যদি নিরপেক্ষ হয় তাহলে নির্বাচন অবাধ নিরপেক্ষ হবে, এখানে সরকারের কোনো সংশ্লিষ্টতা থাকবে না। সরকার শুধু সহযোগিতা করবে কমশনকে।

তিনি বলেন নির্বাচন সংক্রান্ত সরকারের কোনো সংস্থা বা দফতর নির্বাচন চলাকালে, সরকারের নির্দেশে চলবে না। চলবে নির্বাচন কমিশনের অধীনে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের আশা করে বলেন, নির্বাচন কমিশন নির্বাচন সংক্রান্ত যে রাজনৈতিক সংলাপের আহ্বান করেছেন- সেখানে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলো অংশ নিয়ে তাদের দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবেন।

এর আগে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিআরটিসির কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় অংশ নেন। এ সময় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এবিএম আমিন উল্লাহ নুরি ও বিআরটিসির চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলামসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিআরটিসি লাভের ধারায় ফিরে এসেছে – এ ধারাকে অব্যাহত রাখতে হবে।

তিনি বলেন, বিআরটিসি সরকারের যেন বোঝা না হয় সেদিকেও নজর দিতে হবে।

সবাইকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা