শুক্রবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, দুপুর ১২:১৪
শিরোনাম :
বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপের স্ত্রীর সম্পত্তি দেখভালে রিসিভার নিয়োগ হচ্ছে বরিশাল বিআরটিএ’তে দুই বছর আটকে আছে আড়াই হাজার ড্রাইভিং লাইসেন্স মুলাদীতে কৃষি প্রযুক্তি মেলা-২০২০ এর উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও নির্বাহী অফিসার মুলাদী উপজেলা পর্যায়ে ব্লাক বেঙ্গল ছাগল উন্নয়ন ও সম্প্রসারন এর এক্সিভিশন ও পুরুস্কার ২০২০ বিতরন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান ২০৩০ সালের মধ্যে সব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ডিজিটাল অ্যাকাডেমি: প্রধানমন্ত্রী এসিল্যান্ডকে ঘুষ দেওয়ার চেষ্টা, বৃদ্ধ কারাগারে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা হ্রাসের সাথে দক্ষিণাঞ্চলে করোনা সংক্রমণ কমলেও মৃত্যুর মিছিলে ফিরল বরিশাল মহানগরী কক্সবাজার পৌর মেয়রের শ্যালকের ৪ কোটি টাকা জব্দ করেছে দুদক এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত ২৪ সেপ্টেম্বর দিল্লির পাঁচতারকা হোটেলে নারী ট্যুর গাইডকে গণধর্ষণ

মালয়েশিয়া থেকে ফিরলেন আটকে পড়া ১৬০ বাংলাদেশি

বিজলী ডেক্স: পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাই কমিশন এবং সিভিল এভিয়েশন অথরিটি অব বাংলাদেশ (সিএএবি)-এর উদ্যোগে মালয়েশিয়ায় আটকে পড়ে থাকা ১৬০ জন বাংলাদেশিকে বুধবার দেশে ফিরিয়ে এনেছে গ্রীন ডেল্টা ইনস্যুরেন্সের সহযোগী প্রতিষ্ঠান জিডি অ্যাসিস্ট। চলমান করোনা মহামারীতে মালয়েশিয়াতে আটকে পড়া বাংলাদেশিদের এটিই প্রথম এবং বৃহত্তম প্রত্যাবর্তন প্রক্রিয়া। একটি মৃতদেহসহ ১৬০ জন বাংলাদেশিকে নিয়ে একটি বিমান ঢাকায় পৌঁছে। আটকে পড়া বাংলাদেশিদের দেশে নিয়ে আসা চার্টার ফ্লাইটটি দুপুর ১২টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। গত মাসে জিডি অ্যাসিস্টের সহযোগিতায় ব্যাংকক থেকে ফিরিয়ে আনা বাংলাদেশিদের মত এবারের ফ্লাইটেও ১৬০ জন বাংলাদেশির সঙ্গে একটি মৃতদেহ এসেছে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে মালয়েশিয়ায় আটকে থাকা বাংলাদেশিরা দেশে ফেরত আসার জন্য মালয়েশিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশ হাই কমিশনের সাথে যোগাযোগ করে। জিডি অ্যাসিস্ট মালয়েশিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশের হাই কমিশনের মাধ্যমে এই বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনার কাজ শুরু করে। এ ব্যাপারে জিডি অ্যাসিস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মঈনউদ্দীন আহমেদ বলেন, জিডি অ্যাসিস্ট গর্বিত যে এই করোনা-বিড়ম্বনার সময়কালে আটকা থাকা বাংলাদেশিদের দেশে ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে। বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের তাৎক্ষণিক সমর্থন ও সহায়তার জন্য, বিশেষ করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় (এমওএফএ), মালয়েশিয়ার বাংলাদেশ হাই কমিশন, এবং সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষকে (সিএএবি) তিনি ধন্যবাদ জানান। মঈনউদ্দীন আহমেদ আরও বলেন, আটকে পড়া দেশবাসীকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রয়োজনীয় অনুমোদনের পরে জিডি অ্যাসিস্ট কুয়ালালামপুরের দুইটি বিখ্যাত হাসপাতালে সমস্ত যাত্রীদের কোভিড-১৯ স্ক্রিনিং পরীক্ষা করার ব্যবস্থা করেছে।