শুক্রবার, ২২শে অক্টোবর, ২০২১ ইং, দুপুর ১:৩০

আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন

বিজলী ডেক্স::

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জ্যেষ্ঠ কন্যা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সুযোগ্য সভাপতি ও দেশের উন্নয়নের রূপকার ও সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আজ ৭৫তম জন্মদিন। ছাত্রজীবন থেকে রাজনীতিতে সক্রিয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে চারবার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার রেকর্ড গড়েছেন। প্রায় চার দশক ধরে আওয়ামী লীগকে নেতৃত্ব দিয়ে চলেছেন। জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছার জ্যেষ্ঠ সন্তান শেখ হাসিনার জন্ম ১৯৪৭ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর। শৈশব-কৈশোর কেটেছে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় গ্রামের বাড়িতে। ৫৪-র নির্বাচনের পর তিনি বাবা-মা’র সঙ্গে ঢাকায় চলে আসেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট রাতে বঙ্গবন্ধু ও পরিবারের অন্য সদস্যরা ঘাতকদের গুলিতে নিহত হলেও বিদেশে থাকায় শেখ হাসিনা ও ছোট বোন শেখ রেহানা প্রাণে বেঁচে যান।

ছাত্রজীবন থেকে প্রত্যক্ষ রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন শেখ হাসিনা। ১৯৮১ সালে দলের সম্মেলনে শেখ হাসিনার অনুপস্থিতিতে তাকে আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। ওই বছর ১৭ মে দেশে ফিরে দলীয় প্রধানের দায়িত্ব নেন। ১৯৯৬ সালে তার নেতৃত্বে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ। প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন শেখ হাসিনা। এরপর ২০০৮ সালে দ্বিতীয়, ২০১৪ সালে তৃতীয় ও ২০১৮ সালের নির্বাচনের মাধ্যমে চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হন শেখ হাসিনা।

শেখ হাসিনা আজ শুধু দেশের নেতাই নন, তিনি বিশ্বনেতায় অবতীর্ণ হয়েছেন। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ, বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের বিচার, পার্বত্য চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক শান্তিচুক্তি সম্পাদন, একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতি, ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণসহ জাতীয় জীবনের বহুক্ষেত্রে অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছেন তিনি। বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও আন্তর্জাতিক নানা ইস্যুতে তার বিচক্ষণ ও বলিষ্ঠ নেতৃত্ব জাতি হিসেবে আমাদের গৌরবান্বিত করেছে। স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উঠতে যে শর্ত দরকার, তা পূরণ করায় আবেদন করার যোগ্য হিসেবে বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দিয়েছে জাতিসংঘ।

বিশ্বব্যাংককে চ্যালেঞ্জ করে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণের উদ্যোগ ও মেট্রোরেল ও পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রের মতো বড় বড় মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এছাড়া আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ দমন, জলবায়ুসহ একাধিকে ইস্যুতে জাতিসংঘ অধিবেশনে তার দেওয়া প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। জাতিসংঘের মহাসচিবসহ বিশ্ব নেতারা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করেছেন। বিশ্বের কাছে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে।

শেখ হাসিনার শিক্ষাজীবন শুরু হয় টুঙ্গিপাড়ার এক পাঠশালায়। ১৯৬৫ সালে আজিমপুর বালিকা বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ১৯৬৭ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন ঢাকার বকশীবাজারের পূর্বতন ইন্টারমিডিয়েট গভর্নমেন্ট গার্লস কলেজ (বর্তমান বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা মহাবিদ্যালয়) থেকে। ঐ বছরই ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। কলেজে অধ্যয়নকালে তিনি কলেজছাত্রী সংসদের সহ-সভানেত্রী পদে নির্বাচিত হন। তিনি আইয়ুববিরোধী আন্দোলন ও ছয় দফা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন। কারাবন্দী বাবার আগ্রহে ১৯৬৭ সালের ১৭ নভেম্বর পরমাণুবিজ্ঞানী ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার সঙ্গে শেখ হাসিনা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। স্বাধীনতাযুদ্ধ চলাকালে গৃহবন্দী থাকা অবস্থায় ১৯৭১ সালের ২৭ জুলাই শেখ হাসিনার প্রথম সন্তান সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্ম হয়। ১৯৭২ সালের ৯ ডিসেম্বর জন্ম নেন তার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল।

রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে গতকাল এক বাণীতে তাকে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও উষ্ণ অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, পিতার মতোই শেখ হাসিনা গণমানুষের নেতা। তার রাজনৈতিক প্রজ্ঞা, বিচক্ষণতা, গতিশীল নেতৃত্ব, মানবিক মূল্যবোধ দিয়ে তিনি শুধু দেশেই নন, বহির্বিশ্বেও অন্যতম সেরা রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

অপরদিকে জন্মদিন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভারতের হাইকমিশনার শ্রী বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে নরেন্দ্র মোদির শুভেচ্ছা হিসেবে পাঠানো একটি চিঠি ও একটি ফুলের তোড়া হস্তান্তর করেন।

কর্মসূচি: আজ (২৮ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে বিশেষ কার্যক্রমের মাধ্যমে ৮০ লাখ ব্যক্তিকে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া হবে। অপরদিকে আওয়ামী লীগ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দলের সভাপতির জন্মদিনে দোয়া মাহফিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচির কথা জানিয়েছে। আজ বেলা সাড়ে তিনটায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিশেষ দোয়া ও মিলাদ মাহফিল হবে। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে বাদ জোহর এবং দেশের সব মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হচ্ছে। মন্দির, গির্জা ও বৌদ্ধবিহারে অনুষ্ঠিত হবে বিশেষ প্রার্থনা। ঢাকাসহ সারা দেশে আওয়ামী লীগ ও সব সহযোগী সংগঠন আলোচনা সভা, দোয়া ও আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে। দলের পক্ষ থেকে সব নেতা-কর্মীকে যথাযথ স্বাস্থ্য সুরক্ষাবিধি মেনে দিবসটি পালন করার অনুরোধ জানানো হয়েছে।