শুক্রবার, ২২শে অক্টোবর, ২০২১ ইং, দুপুর ১২:১৮

‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি অবান্তর’

অনলাইন ডেস্ক::

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, নির্বাচনে অংশ নেওয়া, না নেওয়া যে কোনো রাজনৈতিক দলের গণতান্ত্রিক অধিকার। তবে নির্বাচনকালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি অযৌক্তিক ও অবান্তর।

শনিবার (২ অক্টোবর) দুপুরে চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাকর্মীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ করে হানিফ বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ৩০টি আসনও পাবে না- বিগত ২০০৮ সালে বেগম খালেদা জিয়াও ঠিক একই কথা বলেছিলেন। ফলে নির্বাচনের পর তাদেরকেই সেই ভাগ্য বরণ করতে হয়েছে। সুতরাং আগামীদিনেও এই দলটির পরিণতি কী হয়, তা সময়ই বলে দেবে।

চাঁদপুর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ওই সমাবেশ বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, গত ১০ বছরে আমরা দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে ব্যাপকভাবে ঢেলে সাজিয়েছে। আনন্দ এবং কর্মমুখী শিক্ষাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। নতুন শিক্ষাক্রমে শুধু বই পড়ে নয়, শিক্ষার্থীরা আনন্দের মধ্য দিয়েও পড়বে।

সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন।

জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নাসিরউদ্দিন আহম্মদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটোয়ারী দুলালের সঞ্চালনায় এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম, কেন্দ্রীয় নেতা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, সুজিত রায় নন্দী, ড. সেলিম মাহমুদ, সংসদ সদস্য মেজর (অব.) রফিক ইসলাম, সংসদ সদস্য মুহাম্মদ সফিকুর রহমান, সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল, কেন্দ্রীয় নেতা নাজিবউল্লাহ হিরো প্রমুখ।

এছাড়া তৃণমূল পর্যায়ের নেতা ফরিদগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদুর রহমান রানা, হাইমচর উপজেলার শাহজাহান প্যাদা, মতলব দক্ষিণের মবিন সুজন, কচুয়া পৌরসভার মেয়র নাজমুল আলম স্বপনসহ অর্ধশত নেতা।

চাঁদপুরে আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাকর্মীদের নিয়ে এই সমাবেশে জেলা ও আট উপজেলা থেকে আসা বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, রোববার (৩ অক্টোবর) একই স্থানে নেতাকর্মীদের নিয়ে দলের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।