রবিবার, ২৯শে মে, ২০২২ ইং, সকাল ৬:২২
শিরোনাম :
বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে বনানীর এক রেস্তোরাঁকে লাখ টাকা জরিমানা ‘জুনে পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে পূর্ণিমার চাঁদ দেখবে বাংলার মানুষ’ লালমোহনে ব্রিজ ভেঙে কয়লাবোঝাই ট্রাক খালে, ভোগান্তিতে জনগণ শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আগামীকাল চেতনানাশক খাইয়ে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে ধর্ষণ থাকছেনা ময়লার ভাগাড়, নির্মিত হবে শপিংমল ; মেয়র, সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্যে ভারতে বসুন্ধরা কিংস কলাপাড়ায় লালুয়া ইউনিয়নে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০ লাখো মানুষের ভালোবাসায় শিরিনের শেষ বিদায় আমিরাতের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে শনিবার বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় শোক

গাজীপুরের সড়কে সচিব

অনলাইন ডেস্ক :
ঈদযাত্রায় এবার অন্যান্যবারের চেয়ে বেশি মানুষ বাড়ি যাবে। সে ক্ষেত্রে যানজটের আশঙ্কা করে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিআরটি একটি চলমান প্রকল্প, আর চলমান প্রকল্পে কিছু সমস্যা থাকে। ঈদের প্রাক্কালে নির্মাণকাজের জন্য যেন ট্রাফিক কনজেশন (যানজট) না হয়, এটাকে সহনীয় মাত্রায় রাখতে মন্ত্রী এবং সরকার জোর দিয়েছেন। এ ছাড়া যানজটপ্রবণ এলাকাগুলো চিহ্নিত করে প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের জানানো হয়েছে।

শনিবার (২৩ এপ্রিল) দুপুরে গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় বিআরটি এবং নাওজোড় এলাকায় সাসেক প্রকল্প পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন। এ সময় সচিবের সঙ্গে প্রধান প্রকৌশলী মো. মনির হোসেন পাঠান, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান, বিআরটি প্রকল্প পরিচালক ইলিয়াস আহমেদ, গাজীপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শরীফুল আলম, জিএমপির উপকমিশনার (ট্রাফিক) আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগেও সড়ক বিভাগের একটি দল মহাসড়ক পরিদর্শন করে গেছে। কোথায় কোথায় খানাখন্দক বা অন্য কোনো সমস্যা আছে তারা সেগুলো চিহ্নিত করেছে এবং সেই অনুযায়ী সংস্কারকাজ হচ্ছে বলেও জানান সচিব।

ঈদে ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচলের বিষয়ে সচিব বলেন, মহাসড়কে এসব গাড়ি চলাচল বন্ধে রুটিন ওয়ার্ক হিসেবে হাইওয়ে পুলিশ কাজ করছে। বিআরটিএ-র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে।

তবে আশঙ্কার বিষয় হচ্ছে, পোশাক কারখানা একযোগে ছুটি হলে পোশাক শ্রমিকরা যেনতেনভাবে বাড়ি ফিরতে চান। সে ক্ষেত্রে অসাধু তৎপরতা বাড়ে এবং ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় আনা হয়। পোশাক কারখানাগুলো ধাপে ধাপে ছুটি হলে এ সমস্যা থাকবে না।

সবাইকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা