শনিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, সকাল ১১:৫০

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে নাব্যতা সংকট, যানজট

বিশেষ প্রতিনিধি:

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে নাব্যতা সংকটের কারণে এবং শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে মোট ১৭টি ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার বিপুল সংখ্যক গাড়ি পার করেও যানজট পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে না। বিগত ১ সপ্তাহ যাবৎ পাটুরিয়া ও দৌলতদিয়া ঘাটে লাগাতার যানজট লেগেই আছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত উভয়ঘাটে ৭ শতাধিক যানবাহন ফেরি পারের অপেক্ষায় ছিল।
বিআইডব্লিউটিসি’র ঘাট কর্মকর্তা-কর্মচারী ও যানবাহন শ্রমিক সত্রে জানা যায়, যাত্রীবাহী যানবাহনগুলো অগগ্রাধিকার ভিত্তিতে পার করা হয় বিধায় মালবাহী যানবাহন পারাপার হচ্ছে পূর্বের তুলনায় অনেক কম ম্ফলে মালবাহী যানবাহন ঘাটে তিন থেকে চার দিন অপেক্ষার পর ফেরিতে পার হতে পারছে।
বিআইডব্লিউটিসি’র ডিজিএম জিল্লুর রহমান জানান, পাটুরিয়া ঘাটের সম্মুখে নৌচ্যানেলে ড্রেজিং চলায় এবং ওই চ্যানেলে ডুবোচর থাকায় সরু চ্যানেলে ফেরিগুলো ওয়ান ওয়ে পদ্ধতিতে চ্যানেল ক্রস করছে। এতে ফেরি চলাচলে সময় বেশি লাগছে। ছোট বড় ১৭টি ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপারে হিমশিম খেতে হচ্ছে।
বিআইডব্লিউটিএ’র নৌপরিবহন ও সংরক্ষণ বিভাগের উপ-পরিচালক মোঃ সানোয়ার হোসেন জানান, ওই চ্যানেলের নাব্যতা সংকটের সম্ভবনা দেখা দেয়ায় প্রায় প্রায় ২ সপ্তাহ আগে থেকে ড্রেজিং শুরু করা হয়। বর্তমানে ওই চ্যানেলে ৪টি ড্রেজার দিয়ে ডুবোচরটি কেটে নতুন চ্যানেল বের করা হচ্ছে। চ্যানেলে ড্রেজার থাকায় ফেরি চলাচল কিছুটা বিঘœ ঘটছে।
বাস শ্রমিকরা জানান, ঘাটে এসে ফেরি বুকিং পেতে ৩/৪ ঘন্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে।
ট্রাক শ্রমিকরা জানান, ফেরি বুকিং পেতে ২/৩ দিন সময় পার হয়ে যাচ্ছে।
এদিকে, ঘাট সংলগ্ন টার্মিনালগুলো পরিপূর্ণ হয়ে পড়ায় ঘাটমুখী যানবাহনের চাপ কমাতে স্থানীয় প্রশাসন পাটুরিয়া ফেরি ঘাট সংযোগ সড়কের মোড় উথলী থেকে আরিচা সড়কে লাইনে দাঁড় করছে রাখছেন। অপরদিকে, দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের রাজবাড়ির গোয়ালন্দ মোড় থেকে একইভাবে মালবাহী ট্রাকগুলোকে লাইনে দাঁড় করিয়ে রাখা হচ্ছে।