বৃহস্পতিবার, ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বিকাল ৪:০১
শিরোনাম :
নেছারাবাদ সাগরকান্দার কুখ্যাত ডাকাত রুবেল খুলনায় আটক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত ডাক্তারের অবহেলায় নবজাতক মৃত্যুর অভিযোগ জেলা তথ্য অফিসের আয়োজনে নারী সমাবেশ ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষ‍্যে নেছারাবাদ উপজেলায় মতবিনিময় সভা বরিশালে যথাযোগ্য মর্যাদায় শহিদ দিবসের কর্মসূচি প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে আশ্রয় নিল ১৪ মিয়ানমার সেনা জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে মারার দল বিএনপি: শেখ ফজলে শামস পরশ বিআইডব্লিউটিএ’র গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে সার্ভিসের সাতটি ইউনিট অগ্রণী ব্যাংক ৯৭৫ তম রায়পুরা শাখার উদ্বোধন আসন্ন রায়পুরা পৌরসভা নির্বাচনে ২নং ওয়ার্ডে মোঃ বাহাউদ্দীনকে কাউন্সিলর করতে চান “ওয়ার্ডবাসী”

১ হাজার ৯১ গৃহহীন পাচ্ছেন ঘর, উদ্বোধন ২৩ জানুয়ারি

অনলাইন ডেস্ক::

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১ হাজার ৯১ জন ভূমি ও গৃহহীন পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর উপহার সরকারি ঘর। ইতোমধ্যে ঘরগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নির্মিত ঘর গুলো উদ্বোধন করবেন। সারা দেশে মডেল ৮টি উপজেলার মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া একটি। সে জন্য আখাউড়া উপজেলার সাথে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হতে পারেন।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন এসব কথা জানান।

সভায় জেলা প্রশাসক জানান, ‘আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ এই স্লোগানে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় যাদের জমি নেই, ঘর নেই তাদের পুনর্বাসনের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ৯টি উপজেলায় সরকারি খাস জমিতে এই সব ঘর নির্মাণ করা হয়েছে।

জেলায় মোট ১ হাজার ৯১টি ঘরের মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলায় ৩২টি, বিজয়নগরে ১০০টি, সরাইলে ১০২টি, নবীনগরে ৪৮৫টি, নাসিরনগরে ৯১টি, বাঞ্ছারামপুরে ৬৪টি, আশুগঞ্জে ৬৮টি, কসবায় ১০৪টি ও আখাউড়া উপজেলায় ৪৫টি পরিবার সরকারি এ ঘর পাবেন।  ইতিমধ্যেই এসব ঘর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। জেলা প্রশাসনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই ঘরগুলো নির্মাণ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

জেলা প্রশাসক জানান, নির্মাণকৃত ১ হাজার ৯১টি ঘর ভূমিহীনদেরকে বুঝিয়ে দেয়ার পর দ্বিতীয় পর্যায়ে যাদের ভূমি ও ঘর নেই (ক-শ্রেনী) তাদের জন্য ৬ হাজার এবং যাদের ভূমি আছে ঘর নেই (খ-শ্রেনী) তাদের জন্য ৯ হাজার ৭৯১টি ঘর নির্মাণ করে দেয়া হবে।

সবাইকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা