সোমবার, ২রা আগস্ট, ২০২১ ইং, সকাল ১১:১৪

শ্রমিকদের প্রাণহানির ঘটনায় দায়ীদের ছাড় নয়: পাটমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক::

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বলেছেন, শ্রমিকদের প্রাণহানি মেনে নেওয়া যায় না। এ ঘটনায় সরকার কাউকে ছাড় দেবে না। কারখানা নির্মাণে কোনো অনিয়ম চলবে না। কেউ অনিয়ম করলে তাকে শাস্তি পেতে হবে।

রোববার (১১ জুলাই) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সেজান জুস কারখানায় ভয়াবহ আগুনের ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন।
কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হয়ে মানুষের মৃত্যুর ঘটনায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ কারখানাটি পরিদর্শন করেন। পরে তারা নিহত ও আহতদের স্বজনদের সাথে কথা বলেন এবং কারখানাটি ঘুরে দেখেন।
এ সময় সেখানে উপস্থিত থেকে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক বলেন, শ্রমিক ভাই-বোনেরা দেশের অর্থনীতি সচল রাখছে। তাদের প্রাণহানি মেনে নেওয়া যায় না। অনিয়মের উপযুক্ত শাস্তি পেতে হবে।
জেলা প্রশাসনের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকেও অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা ও তাদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান তিনি।

স্থানীয় সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রূপগঞ্জে নিহত ও আহতদের বিষয়ে খোঁজ-খবর রাখছেন। এ ঘটনায় তিনি খুব দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি আহত শ্রমিকদের সুচিকিৎসা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক (ঢাকা বিভাগ) মির্জা আজম, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক মৃনাল কান্তি দাস, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক বাদল, নারায়ণগঞ্জ -২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বাবুসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার ৮ জুলাই বিকেল সাড়ে ৫টার পর সজীব গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজের ফুডস (সেজান জুস নামে পরিচিত) কারখানাটিতে আগুন লাগে।
রোববার (১১ জুলাই) বিকেলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে রূপগঞ্জ উপজেলার কর্ণগোপ এলাকায়ও চলছে শোকের মাতম। স্বজনদের আর্তনাদে বারবার দায়ী হচ্ছে কারখানা কর্তৃপক্ষকে। তাদের অভিযোগ, আগুন লাগার পর কারখানার বিভিন্ন ফ্লোরের গেটে তালা লাগিয়ে শ্রমিকদের আটকে রাখায় মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ হয়েছে।
ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর অভিযোগের প্রতি সায় দিচ্ছেন সংশ্লিষ্ট অনেকেই। শনিবার বিকেলে অগ্নিনির্বাপক ও উদ্ধার অভিযান শেষে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষের সবশেষ ব্রিফিংয়েও উঠে আসে কারখানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে একই ধরনের অভিযোগের কথা।
তবে একই দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জোর গলায় বলেন, দোষীদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। তদন্তে যাদের দোষ প্রমাণ হবে তাদের আইনের বিধি অনুযায়ী বিচার করা হবে।
এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা হত্যা মামলায় শনিবার (১০ জুলাই) সজীব গ্রুপের চেয়ারম্যান ও তার চার ছেলেসহ আটজনকে চারদিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। রিমান্ড শেষে আসামিদের পুনরায় আদালতে হাজির করা হবে।