রবিবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং, দুপুর ১২:৪৮

আইভির অভিযোগের বিষয়ে মুখ খুললেন শামীম ওসমান

অনলাইন ডেস্ক

মিছিল আর পথসভায় জমে উঠেছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রচারণা। শহরজুড়ে শুধুই ভোটের আমেজ। প্রত্যাশা পূরণের আশ্বাস দিয়ে প্রার্থীরা যাচ্ছেন ভোটারদের কাছে।

এরইমধ্যে ‘তৈমূর আলম খন্দকার গডফাদার শামীম ওসমান ও সেলিম ওসমানের প্রার্থী। উনি বিএনপির প্রার্থী না, স্বতন্ত্র প্রার্থী না; তিনি ওসমান পরিবারের প্রার্থী।’- আইভীর এমন অভিযোগের পর এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে সরকারদলীয় সাংসদ শামীম ওসমান। বিষয়টি নিয়ে তিনি গণমাধ্যমের কাছে নিজের অবস্থানও পরিষ্কার করলেন।

শামীম ওসমান বলেন, ‘দুই দিন আগে তিনি (আইভি) আমাকে বললেন, নেতা, এমপি, বড়ভাই। আজকে বললেন গডফাদার। আমি আওয়ামী লীগ করি, সে ও আওয়ামী লীগ করে। আমি এমপি হয়েছি আওয়ামী লীগের মনোনয়নে। এখন আমি যদি গডফাদার হই, তাহলে আঙুলটা কার দিকে তোলা হলো?’

শামীম ওসমান বলেন, ‘আমাকে গডফাদার বলে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার প্রতি আঙুল তুলেছেন।’

এমনকি বিষয়গুলো নিয়ে দুই দিনের মধ্যে সংবাদ সম্মেলন করে জবাব দেবেন বলেও গণমাধ্যমে জানিয়েছেন শামীম ওসমান।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নিজেকে খুব একটা প্রাসঙ্গিক বলে মনে করছেন না মন্তব্য করে শামীম ওসমান বলেন, ‘আমি কোনো সাবজেক্ট না। প্রথম দিক থেকেই চুপচাপ ছিলাম। এখনো আছি। তাহলে আমি নিউজ হব কেন? যাঁরা আমাকে নিউজ বানাতে চাচ্ছেন। আমি তো তাদের (কেন্দ্রীয় নেতা) বলেছি, কী কারণটা। এখন ওনারা যদি কেউ কেউ ফায়দা লুটার চেষ্টা করেন, তাহলে এখন আমার দায়িত্ব হচ্ছে জনগণকে জানানো। জনগণ যদি সেটা সঠিক মনে করে, তাহলে সঠিক। এটা সম্পূর্ণ আমার ব্যক্তিগত বিষয়, কোনো রাজনৈতিক নয়।’

এদিকে, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনকে রোল মডেল হিসেবে গড়ে তুলতে চান বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টার পদ থেকে সদ্য অব্যহতি হওয়া তৈমুর আলম খন্দকার।

তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জবাসীর ১৮ বছরের পুঞ্জীভূত ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ এখন ঘটছে। জনগণ পরিবর্তন চায়। আল্লাহপাক চাইলে আমি নির্বাচিত হব, ইনশাল্লাহ।

আইভি বলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটিতে পাঁচশ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ চলছে। আমি বিগত দিনে যে উন্নয়ন করেছি, তার সুফল ভোগ করছে নারায়ণগঞ্জবাসী। উন্নয়ন অব্যাহত রাখার জন্য জনগণ আমাকেই ভোট দেবে।

আগামী ১৬ জানুয়ারি ২০ লাখ নগরবাসীর ভাগ্য নির্ধারণে ভোট দেবেন প্রায় ৫ লাখ ভোটার।