রবিবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং, দুপুর ১২:৪৮

পরিকল্পিত ও মডেল পৌরসভা গড়তে ‘বিডব্লিউটিপিএল’ কে সাথে নিয়ে নগরপিতার নির্বাচনী ইশতেহারের বাস্তবায়ন শুরু

রায়পুরা প্রতিনিধি::

নরসিংদীর রায়পুরা পৌরসভার দ্বিতীয়বার নির্বাচিত জনকল্যাণমুখী নগরপিতা মোঃ জামাল মোল্লা পরিচ্ছন্ন রায়পুরা পৌরসভা গড়তে ও পৌরবাসীর ভোগান্তি দূর করতে ‘বাংলাদেশ ওয়েস্ট ট্রিটমেন্ট প্লান্ট লিমিটেড (বিডব্লিউটিপিএল)’ নামক কোম্পানিকে দায়িত্ব দিচ্ছে। কোম্পানিটি রায়পুরা পৌরসভার হাউজ-হোল্ড, বাজারের দোকানপাট, মার্কেট, স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা,অফিস-আদালত ও ধর্মীয় উপাসনালয় সমূহের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করবে। এবিষয়ে নগরপিতা বলেন, গত মেয়াদেই আমি ‘বিডব্লিউটিপিএল’ কে দায়িত্ব দিয়ে রায়পুরা পৌরসভায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে চেয়েছিলাম। কয়েকজন কাউন্সিলর আমার এই উদ্যোগে দ্বিমত পোষণ করে। তারা কেন দ্বিমত পোষণ করেছিলো আমি জানি না। তবে তারা কেও এই মেয়াদে নির্বাচিত হতে পারে নাই। যারা নির্বাচিত হয়েছে সবাই জনকল্যাণমুখী বলে আমি বিশ্বাস করি। আমি মনেকরি পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা মৌলিক চাহিদার মধ্যে থাকা উচিৎ। দেশনেত্রী শেখ হাসিনা দেশের সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করলেও তা নস্যাৎ হয়ে যাচ্ছে বর্জ্যের অব্যবস্থাপনার কারণে। আমরা সুস্থ থাকার জন্য মাছ, মাংস, ফলমূল ও ভালো ভালো খাবার খাই। কিন্তু আমাদের বাথরুম যদি ভালো না থাকে, বাথরুমের মশা মাছি যদি আমাদের ঘরে ঢুকে তাহলে সুস্থ থাকার সকল চেষ্টা বিফলে যাবে। এজন্য দেশনেত্রী শেখ হাসিনা চিন্তা করেন- সুস্থ থাকার জন্য সৌন্দর্যবর্ধন যেমন দরকার, ঠিক তেমনি প্রতিদিনের যে বর্জ্য সৃষ্টি হচ্ছে সেগুলি কোথায় নিঃষ্কাশিত হচ্ছে, কোথায় ফেলা হচ্ছে সেই ব্যাপারে সর্তক হওয়াও জরুরি। ভালো থাকার জন্য আপনি বড় বিল্ডিং করলেন কিন্তু ময়লা আবর্জনা বিল্ডিংয়ের পাশে ফেললেন। অল্প অল্প করে ফেলে দেখা যায় ময়লার বড় স্তুপ হয়ে যায়। এগুলি পঁচে দুর্গন্ধ ছড়ায়। ফলে চলতে ফিরতে আমরা ময়লা আবর্জনার রোগ জীবাণুতে আক্রান্ত হই। সুতরাং এই ব্যাপারে সামাজিক ভাবে আমাদের সচেতন হওয়া উচিৎ। আমার পরিকল্পনা আছে, রাস্তার আশে পাশে যেসব জায়গায় আমরা ময়লা আবর্জনা ফেলি, ঐসব জায়গায় ছোট আকারে টবের মধ্যে ফুলের গাছ লাগিয়ে পৌরসভার পরিবেশ সুন্দর করবো। এজন্য প্রথমেই দরকার বর্জ্য ব্যবস্থাপনা। কাজেই আমি সকলের আন্তরিকতা ও সহযোগিতা কামনা করি এবং ‘বিডব্লিউটিপিএল’ কোম্পানির কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি এইজন্য যে, তারা রায়পুরা পৌরসভায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে এগিয়ে আসছে। আশা করি তাদের উদ্দেশ্য সফল হবে এবং তারা যে পরিশ্রম করে রায়পুরা পৌরসভার পরিবেশ সুস্থ ও সুন্দর রাখবে তা পৌরবাসির উপকারে আসবে। কোম্পানিটির প্রধান উপদেষ্টা রায়পুরা সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক আব্দুল হামিদ ও রায়পুরার কৃতি সন্তান কবি ও সাহিত্যিক মহসিন খন্দকার বলেন, রায়পুরা পৌরসভায় বর্জ্য নিষ্কাশনের কোনো ব্যবস্থা নাই। বাড়ির আশে পাশে খোলা জায়গায় আমরা ময়লা আবর্জনা ফেলি। এতে করে পরিবেশ মারাত্মক ভাবে দূষিত হচ্ছে। এই দূষিত পরিবেশের হাত থেকে আমরা কেউ নিরাপদ না। বর্তমান সময়ে চলমান কোভিড-১৯ মহামারির সর্বশেষ ভেরিয়েন্ট ওমিক্রনের কথাই আমরা বলি। এগুলি কোথা থেকে আসছে? এগুলিকি আল্লাহ হুকুম করে সৃষ্টি করেছে? কখনো না। পৃথিবী সৃষ্টিলগ্ন থেকেই ছিল। বর্তমান পরিবেশের বিপর্যয়ের কারণে এটা পর্যায়ক্রমে আমাদের মধ্যে চলে আসছে। পশুপাখি থেকে আমাদের মাঝে চলে আসছে। পশুপাখি যেটা বহন করতে পারে, আমরা সেটা বহন করতে পারি না। সে কারণেই আমাদের মধ্যে প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হচ্ছে। মানুষ শ্বাসকষ্টে মারা যাচ্ছে। আর এটার মূল কারণই হচ্ছে পরিবেশ। আমাদের সকলের উচিৎ পরিবেশকে সুস্থ ও স্বাভাবিক রাখা। আর এই উদ্দেশ্যেই ‘বিডব্লিউটিপিএল’ মাঠে নামছে। কাজটি অতি নগণ্য। অনেকের চোখে পড়ে না, বা পড়লেও মনে করে বর্জ্য ব্যবস্থাপনাও একটা কাজ! আর এটা নিয়াও আমাদের সামনে আগাইতে হবে! এই বিষয়টা নিয়েও মেয়র ভাববে! এগুলি অনেকেই মনে করে। কিন্তু আসলে বিষয়গুলি আপনারা একটু গভীরভাবে উপলব্ধি করলে বুঝবেন এর গুরুত্ব কতটুকু। বাংলাদেশ ওয়েস্ট ট্রিটমেন্ট প্লান্ট লিমিটেডের মতো পৃথিবীব্যাপী বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান আছে যারা পরিবেশ নিয়ে ভাবে। হয়ত নিজের জন্য ভাবে না। আমার আপনার জন্য ভাবে। পরিবেশ সুন্দর থাকলে আমি সুস্থ থাকবো, আপনি সুস্থ থাকবেন, আপনার পরবর্তী প্রজন্ম সুস্থ থাকবে। ‘বিডব্লিউটিপিএল’ যে উদ্দেশ্য নিয়ে আসছে মেয়র সাহেব প্রথমেই সেই উদ্দেশ্যকে স্বাগত জানায়। আমরা মনে করি, আমরা পৌরবাসি সবাই যদি ‘বিডব্লিউটিপিএল’ কে সহযোগিতা করি, তাহলে রায়পুরা পৌরসভার পরিবেশ সুন্দর হবে এবং মানুষ এখন যে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসবাস করে, সেই পরিবেশের হাত থেকে নিষ্কৃতি পাবে। তার সুফল পর্যায়ক্রমে পৌরবাসি ভোগ করবে এবং এই সুফলের জন্য ‘বিডব্লিউটিপিএল’ যে শ্রম দিবে, আমরা পৌরবাসি তার মূল্যায়ন করবো।

গত ৭ই জানুয়ারি,২০২২ রোজ শুক্রবার সকাল ১১টায় নবনির্বাচিত নগরপিতাকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানায় ‘বাংলাদেশ ওয়েস্ট ট্রিটমেন্ট প্লান্ট লিমিটেড’-র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক সাইদুল ইসলাম ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক জয়ন্ত কর্মকার। এসময় উপস্থিত ছিলেন রায়পুরার কৃতি সন্তান কবি ও সাহিত্যিক মুহসিন খন্দকার, রায়পুরা সরকারি কলেজের অধ্যাপক আব্দুল হামিদ, নরসিংদী প্রথম আলো বন্ধুসভার দপ্তর সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রফিক, পৌর আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আকরাম হোসেন, পৌর সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোঃ আলমগীর হোসেন, পৌর আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মোঃগফুর মিয়া,পৌর আওয়ামী যুবলীগ সদস্য মোঃ গোলাপ মিয়া; মোঃ জয়নাল মিয়া; মোঃ ছাদেক মিয়া, পৌর ছাত্রলীগ সদস্য মোঃ মহন মোল্লা; মোঃ রাজন মিয়া; মোঃ সাদ্দাম হোসেন, বিশিষ্ট পৌর ঠিকাদার ও সমাজ সেবক রতন মিয়া; গোলাম মস্তোফা; দানা মিয়া; শাহীন মোল্লা; মাহবুব; হান্নান মোল্লা; বিল্লাল মিয়া এবং পৌরসভার বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা। উপস্থিত সকলেই নগরপিতার এই মহৎ উদ্যোগের প্রশংসা করে পৌরবাসীর সুস্থ ও সুন্দর ভবিষ্যৎ কামনা করেন।