সোমবার, ১২ই এপ্রিল, ২০২১ ইং, দুপুর ১:৩৯

যেভাবে আগুন ধরে যায় স্পেসএক্সে (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক::

চাঁদ ও মঙ্গলগ্রহে মানুষ নিয়ে যেতে চায় স্পেসএক্স। চাঁদে ২০২৩ ও মঙ্গলে ২০২৬ সালের মধ্যে। তাই তাদের স্টারশিপের নিয়মিত পরীক্ষা হচ্ছে। কিন্তু এবারের পরীক্ষা সফল হলো না। কারণ মঙ্গলে তারা যে রকেট পাঠাবে, সেরকমই একটি রকেট নিয়ে পরীক্ষা করছিল স্পেসএক্স। কিন্তু উড়ান শেষ করে ল্যান্ডিংয়ের সময় তা ভেঙে পড়ে। এর কিছুক্ষণ পরই আগুন ধরে যায়। মার্কিন সংবাদ সংস্থা স্টারশিপ উৎক্ষেপণ ও শেষ মুহূর্তে আগুন ধরে যাওয়ার একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে।

বুধবার (৩ মার্চ) টেক্সাসের বোকা চিকা শহরে স্পেসএক্সের একটি উৎক্ষেপণ কেন্দ্র থেকে গতি পরীক্ষার জন্য রকেটটি পাঠানো হয়। তবে মাত্র ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেয়ার পরই রকেটটির পাওয়ার ইউনিট বন্ধ হয়ে যায়। কিছুক্ষণের মধ্যেই ইঞ্জিন নষ্ট হয়ে এটি নিচের দিকে পড়তে থাকে। এ সময় জরুরি অবতরণের চাকাগুলোও কাজ করছিল না বলে জানা যায়। মাটিতে ধসে পড়ার মাত্র আট মিনিটের মাথায় পুরো রকেটটিতে আগুন ধরে যায়। এ নিয়ে স্টারশিপের পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণের পরপর তিনটি প্রয়াসই ব্যর্থ হলো।

গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। বুধবার টেক্সাসের বোকা চিকা শহরে স্পেসএক্সের একটি উৎক্ষেপণকেন্দ্র থেকে গতি পরীক্ষার জন্য রকেটটি পাঠানো হয়। তবে মাত্র ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেয় রকেটটি। এরপর আবার ফিরে এসে ল্যান্ডিং প্যাডে অবতরণ করে রকেট। এর কিছুক্ষণ পরই আগুন ধরে যায়।

সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, রকেট ভেঙে পড়লেও বিষয়টি ইতিবাচক হিসেবে দেখছে স্পেসএক্স। কারণ, রকেটটিতে আগুন ধরার আগে এটি অবতরণ করতে সক্ষম হয়েছিল। স্পেসএক্স ইঞ্জিনিয়ার জন ইন্সপেক্টর বলেন, ‘আমরা ল্যান্ডিং প্যাডে একটি সফল স্পর্শ পেয়েছি।’