সোমবার, ১২ই এপ্রিল, ২০২১ ইং, দুপুর ১২:২২

চার ম্যাচ জিতলেই ইপিএল শিরোপা ম্যানসিটির

স্পোর্টস ডেস্ক ::

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপার আরও কাছে চলে গেল ম্যানচেস্টার সিটি। লেস্টারকে তাদের মাঠেই ২-০ গোলে হারিয়েছে পেপ গার্দিওলার দল। ৩১ ম্যাচে ৭৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরও পোক্ত করেছে সিটিজেনরা। অন্য ম্যাচে দ্বিতীয়ার্ধ্বের ম্যাজিকে আর্সেনালকে ৩-০ গোলে হারাল লিভারপুল। সেই সঙ্গে জোড়া গোল করেছেন দিয়েগো জটা।

মৌসুমের শুরুতে লেস্টারের কাছে ৫-২ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছিলো ম্যানচেস্টার সিটি। সে হারের প্রতিশোধ নেয়ার সুযোগ অবশেষে আসলো পেপ গার্দিওলার দলের।

আন্তর্জাতিক ম্যাচের জন্য দুই সপ্তাহ বিরতির পর মাঠে নামলেও, মাঠে দেখা পাওয়া যায় সেই পুরনো সিটির। শুরু থেকেই ফক্সেসদের ডি বক্সে করতে থাকে একের পর এক আক্রমণ।

ম্যান সিটি গোল পেয়েছিলো ৫ মিনিটেই। কিন্তু অফসাইডের জন্য সেটা বাতিল হয়ে যায়। এতে যেন আরও তেতে ওঠে গার্দিওলার দল। বেড়ে যায় আক্রমণের মাত্রা। ২৩ মিনিটে কেভিন ডি ব্রুইনার শট পোস্টে লেগে ফিরে আসলে আবারও গোল বঞ্চিত হয় সিটি।

এরপরেও থেমে থাকেনি লিগ লিডাররা। প্রথমার্ধ্বের শেষ দিকে আবারও লক্ষ্য ভ্রষ্ট হয় ডি ব্রুইনার শট। উলটো প্রথমার্ধ্বের যোগ করা সময়ে লেস্টার এক গোল করলেও সেটা অফসাইডে বাতিল হয়ে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধে যেন গোল করার প্রতিজ্ঞা নিয়ে মাঠে নামে গার্দিওলা বাহিনী। ৫৮ মিনিটে বেঞ্জামিন মেন্ডির গোলে লিড পায় ম্যান সিটি।

সিটিজেনদের পূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিশ্চিত করেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। কাউন্টার অ্যাটাক থেকে দারুণ ফিনিশিংয়ে ব্যবধান করেন ২-০। এতেই নিশ্চিত হয় দলের জয়। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের চেয়ে ১৭ পয়েন্টে এগিয়ে গেলো সিটি।

অন্য ম্যাচে এমিরেটস স্টেডিয়ামে আর্সেনালকে উড়িয়ে দিয়েছে লিভারপুল। লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা নিজেদের ঘরে হারলেও, অ্যাওয়ে ম্যাচে ঠিকই পাচ্ছে জয়।

শুরু থেকে লিভারপুল বল দখলে এগিয়ে থাকলেও প্রথমার্ধে প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের পরীক্ষা নিতে পারেনি অলরেডরা। ৩৫ মিনিটে জেমস মিলনারের শট চলে যায় পোস্টের বাইরে। আর্সেনালও ভয় ধরাতে পারেনি লিভারপুল রক্ষণে।

যদিও দ্বিতীয়ার্ধে পালটে যায় ম্যাচের চিত্র। ৬৪ মিনিটে অ্যালেকজান্ডার আরনল্ডের দারুণ ক্রসে গোল করে অলরেডদের লিড এনে দেন বদলি হিসেবে নামা দিয়েগো জটা।

চার মিনিট পরে একক নৈপুণ্যে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন লিভারপুলের মিশরীয় গোল মেশিন মোহাম্মদ সালাহ।

শেষ গোলটাও পর্তুগীজ ফরোয়ার্ড জটার। সাদিও মানের অ্যাসিস্টে ৩-০ হয় ব্যবধান। শিরোপা স্বপ্ন শেষ হয়ে গেলেও, শীর্ষ চারের সমীকরণে এখনো টিকে থাকলো ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।