শুক্রবার, ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং, সকাল ১১:৩৬
শিরোনাম :
বরিশালের মুলাদীর ফেক আই ডি কাজিরচর নিউজ বুলেটিন এর বিরুদ্ধে থানায় জি.ডি পিরোজপুরে দুই বোনসহ তিনজনের করোনা শনাক্ত করোনার ক্রান্তিকালে মানবিকতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে পিরোজপুর জেলা পুলিশে কর্মরত ৪৬ তম ব্যাচের পুলিশ কনস্টেবলগণ করোনা আক্রান্তের হার সবচেয়ে বরিশালে কম, সর্বোচ্চ ঢাকায় ঝালকাঠির রাজাপুরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ত্রাণ তহবিল থেকে অসহায় দুঃস্থদের মাঝে চিকিৎসা সহায়তার চেক বিতরণ জানি কিন্তু মানিনা, নীতিকে পাশ কাটিয়ে মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে ব্যবসা নলছিটিতে ইয়াবাসহ চার মাদক কারবারি গ্রেপ্তার দেশে করোনায় নতুন শনাক্ত ৭০৯ করোনা তহবিলে টাইগারদের ৩০ লাখ; আরও সাহায্য চাইলেন মুশফিক করোনায় থেমে নেই পদ্মা সেতুর কাজ, বসছে ২৯তম স্প্যান

আবারও মামলা করলেন সঙ্গীতশিল্পী মিলা

ডেক্স রিপোর্ট : কণ্ঠশিল্পী মিলা এবং তার সাবেক স্বামী পারভেজ সানজারি একে অপরের বিরুদ্ধে মামলা করে চলেছেন। সানজারিকে এসিড ছুঁড়ে মারার দায়ে মিলার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। এবার মিলা সানজারির বিরুদ্ধে ইউটিউবে কুৎসা রটানোর অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের আওতায় মামলা করেছেন মিলা। গত বৃহ¯পতিবার বিকালে সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসসামছ মোহাম্মদ জগলুল হোসেনের আদালতে মামলাটি দায়ের করেন তিনি। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন। পরে মামলাটি পুলিশের কাউন্টার টেররিজমের সাইবার ইউনিটকে অভিযোগের তদন্ত করে আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। মামলার অন্য দুই আসামিরা হচ্ছেন মিলার প্রাক্তন স্বামী পারভেজ সানজারির ভাই এসএমআর রহমান এবং মামাতো ভাই খান আল আমিন। বাদীপক্ষের আইনজীবী এইচ এম তানভীর ও বারের বর্তমান সেক্রেটারি আসাদুজ্জামান খান রচি শুনানি করেন। এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়, আসামিগন গত ১৫ জুন সিরাজি ভাই নামের এক ইউটিভব চ্যানেলে একটি ভিডিও প্রকাশ করে। যাতে সন্ত্রাসী পপ-তারকা মিলা শিরোনামে উল্লেখ করা হয়। আসামিগন বাদীর বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য বলে ক্ষান্ত হননি বরং সেই কথাগুলো শেয়ার করে দেশের জনগণ ও আইন আদালত রাষ্ট্রপক্ষের বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। মামলার এজহারে উল্লেখ করা হয়, ২০১৭ সালের ১২ মে আসামি পারভেজ সানজারি সাথে মামলার বাদীর বিয়ে হয়। বিয়ের কয়েক মাস যাওয়ার পর মামলার বাদীকে মানসিক ও শারীরিকভাবে অত্যাচার করতে শুরু করে সানজারি। আসামি পারভেজ সানজারি একজন মাদকাশক্ত ,উচ্ছৃঙ্খল, অনৈতিক চরিত্রের হওয়ার বাদীকে যৌতুকের দাবীতে মারধর করে। এরপর বাধ্য হয়ে ২০১৭ সালের ৫ অক্টোবর উত্তর-পশ্চিম থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ও দন্ডবিধির আরেক ধারায় একটি মালমা দায়ের করেন। ওই মামলার পারভেজ সানজারিকে পুলিশ গ্রেফতার করেন। এর কিছুদিন পরে পারভেজ জামিন পান।